প্রচ্ছদ বিশ্ব-বাণিজ্য ব্যবসা-বাণিজ্য

বাংলাদেশের বাণিজ্য দ্বিগুণ করা সম্ভব

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের এখন যে বাণিজ্য হচ্ছে, সেটি দ্বিগুণ করার সুযোগ রয়েছে বলে বিশ্বব্যাংকের এক গবেষণায় উঠে এসেছে। বহুজাতিক সংস্থাটি বলেছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য এখন ৭৬০ কোটি ডলারের। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ৬২ হাজার ৩২০ কোটি টাকা। এটিকে এক হাজার ৯০০ কোটি ডলারে উন্নীত করা সম্ভব। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ এক লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে বাণিজ্য কেন বাড়ছে না—এর পেছনে কয়েকটি কারণ চিহ্নিত করেছে বিশ্বব্যাংক। গবেষণায় বলা হয়েছে, উচ্চ শুল্ক, অশুল্ক বাধা, যোগাযোগ খরচ এবং এক দেশের সঙ্গে আরেক দেশের আস্থার সংকটের কারণে বাণিজ্য বাড়ছে না। প্রতিবেদনটি গতকাল বুধবার রাজধানীর গুলশানে আমারি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর পারস্পরিক বাণিজ্য উন্নয়নে প্রভাবশালী সুবিধাভোগী একটি গোষ্ঠী অন্তরায় হিসেবে কাজ করে। মূলত এ গোষ্ঠীর নেপথ্য তত্রপরতার কারণে দেশগুলোর দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যে শুল্ক-অশুল্ক বাধা কমছে না। ফলে আঞ্চলিক বাণিজ্যে বাংলাদেশের অংশীদারি আশানুরূপ হারে বাড়ছে না। অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বাণিজ্য ইউরোপ, আমেরিকানির্ভর। সেখানে সুবিধা বেশি পাওয়া যায়। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে আমাদের বাণিজ্য আরো বাড়াতে হবে।’ ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে স্পর্শকাতর তালিকায় থাকা পণ্যের সংখ্যা কমানোর চেষ্টা চলছে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।

‘এ গ্লাস হাফ-ফুল : দ্য প্রমিজ অব রিজিওনাল ট্রেড ইউনিয়ন ইন সাউথ এশিয়া’ শীর্ষক বিশ্বব্যাংকের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাণিজ্য বাধা দূর করে দক্ষিণ এশিয়ার বাণিজ্যের আকার তিন গুণ করা সম্ভব। বর্তমানে দক্ষিণ এশিয়ার ২৩ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য হচ্ছে। মানুষের তৈরি বাধাগুলো দূর করতে পারলে এটি ৬৭ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা সম্ভব। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, তবে এ সম্ভাবনায় প্রধান অন্তরায় হচ্ছে উচ্চ শুল্ক, অশুল্ক বাধা, যোগাযোগ খরচ এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে আস্থার সংকট। এসব কারণে সারা বিশ্বে যেখানে এক ট্রিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য করছে, সেখানে গত ২৫ বছরে এ অঞ্চলের বাণিজ্য এখনো ২৩ বিলিয়ন ডলারে আটকে আছে। আর বাংলাদেশ অংশ সম্পর্কে এ প্রতিবেদনে বলা হয়, দক্ষিণ এশিয়ায় আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের মাত্র ৯ শতাংশ অবদান রাখছে বাংলাদেশ। অথচ এর পরিমাণ দ্বিগুণ করা সম্ভব। মুদ্রার হিসাবে যার পরিমাণ হবে প্রায় ২০ বিলিয়ন ডলার। বিশ্বব্যাংক জানায়, দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের বাণিজ্যের পরিমাণ ৭.৬ বিলিয়ন ডলার। অথচ শুধু ভারতের সঙ্গেই এর চেয়ে বেশি ব্যবসা করা সম্ভব। এটি বাড়াতে হলে আন্তর্দেশীয় সক্ষমতা ও অবকাঠামো কাজে লাগানোর পরামর্শ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। পারস্পরিক আস্থা-বিশ্বাস বাড়ানোরও তাগিদ দেওয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।

Advertisement

Advertisement

Facebook Page

SuperWebTricks Loading...