সাফল্য সংবাদ

আজকের কৃষি ক্ষেত্রের সাফল্যর ভিত্তিটা তৈরি হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর হাতে

অগ্রগতির যাত্রায় আমরা আজকে অনেকদূর পেরিয়ে এসেছি। কৃষি ক্ষেত্রে উত্পাদন বৃদ্ধি ও বৈচিত্রায়নে আমাদের সাফল্য গর্ব করার মতো। খাদ্যশস্য উত্পাদন এখন পৌঁছেছে তিন কোটি আশি লক্ষ টনে, ১৯৭২ সনে যা ছিল প্রায় এক কোটি মেট্রিক টন। মাছ উত্পাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে চতুর্থ। গোল আলু উত্পাদনে বিশ্বে সপ্তম এবং আগে শাক-সবজির উত্পাদন শীত মৌসুমে ব্যাপ্ত ছিল (মোট উত্পাদনের ৭০ শতাংশ) যা এখন বছরব্যাপী প্রসারিত হয়েছে। পোল্ট্রি ও ডিম ১৬ কোটি মানুষের চাহিদা মিটাচ্ছে। ১২শ কোটি পিস এখন আমাদের বার্ষিক ডিম উত্পাদন। কলা চাষে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ। বিখ্যাত দার্শনিক রুশো বলেছিলেন, ‘পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও গৌরবমণ্ডিত শিল্প হচ্ছে কৃষি’। গ্রাম-বাংলার শাশ্বত প্রকৃতির কোলে লালিত, বড় হয়ে উঠা এবং কৃষক, মজুর, মেহনতি জনমানুষের সংস্পর্শে রাজনীতির চিন্তা চেতনার বিকাশ পর্যায়ে ক্রমান্বয়ে শতাব্দীর মহানায়ক বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠেছিলেন অত্যন্ত দূরদর্শী ও বিজ্ঞানমনস্ক। হয়ে উঠেছিলেন ঔপনিবেশিক জাঁতাকলে শোষিত, পিষ্ট মানুষের মুক্তির অবতার। নেতৃত্বের সফল পরিণতিতে একাত্তরে রচনা করতে পেরেছিলেন বাঙালির চির আরাধ্য মুক্তি সংগ্রামের মহাকাব্য।

About the author

admin

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Advertisement

Advertisement

Facebook Page

SuperWebTricks Loading...